২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


কনসার্টের বেঞ্চের জন্য প্রধান শিক্ষিকার বাড়িতে আগুন

ক্যাম্পাস ডেস্ক» নড়াইলে কনসার্ট অনুষ্ঠানের জন্য বিদ্যালয়ের বেঞ্চ না দেয়ায় প্রধান শিক্ষিকার বাড়িতে আগুন দেয়ার অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। তবে বিষয়টি অস্বীকার করেছেন অভিযুক্ত ব্যক্তি।

বুধবার রাতে সদর উপজেলার রামচন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষিকা ফরিদা ইয়াসমিনের বাড়িতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়। এতে শিক্ষিকার বাড়ির সব জিনিসপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

শিক্ষিকা ফরিদা ইয়াসমিন অভিযোগ করে বলেন, রামচন্দ্রপুর গ্রামের মিজানুর রহমান মিয়ার ছেলে রাসেল কয়েকদিন আগে একটি কনসার্ট অনুষ্ঠানের জন্য বিদ্যালয়ের বেঞ্চ নিতে গেলে বাধা দেয়া হয়। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে কিছুদিন ধরে আমাকে হুমকি-ধমকি দিচ্ছিল রাসেল। সেইসঙ্গে রামদা নিয়ে বাড়ির ওপর এসে আমাকে হুমকি দিয়ে যায়। গত এক সপ্তাহ ধরে ফেসবুকে বিদ্যালয়ের পড়াশোনা ও ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে নানা ধরনের অপপ্রচার চালিয়ে আসছে রাসেল। এর মধ্যে বুধবার রাত দেড়টার দিকে আমার বাড়িতে আগুন দেয়া হয়। এ সময় আমার বৃদ্ধা মা, দুই বোন এবং আমি তড়িঘড়ি করে ঘর থেকে বের হয়ে প্রাণে বেঁচে যাই।

স্থানীয়রা জানান, আগুনে শিক্ষিকার বাড়ির একটি মোটরসাইকেল, বাইসাইকেল, ঘরের যাবতীয় মালামাল পুড়ে ছাই হয়ে যায়। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৫ লক্ষাধিক টাকার অধিক।

Narail-Fire-Photo

অভিযুক্ত রাসেল মিয়া বলেন, ফরিদা আপা আমাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষক। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়ে একটু ঝামেলা চলছিল। তিনি একপক্ষ নিয়ে কাউকে না ডেকে কমিটি গঠন করেছেন। আমার অপরাধ আমি এ ঘটনার প্রতিবাদ করেছি এবং ফেসবুকে এ নিয়ে লেখালেখি করেছি। আমি মূলত এলাকার রাজনীতির শিকার। গতকাল রাতে ঘটনার সময় আমি ঘুমিয়ে ছিলাম। তার বাড়িতে আগুন দেয়ার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।

Narail-Fire-Photo

নড়াইল সদর থানা পুলিশের ওসি ইলিয়াস হোসেন বলেন, অগ্নিকাণ্ডের খবর শুনে রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে পুলিশ। তদন্ত করে এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভিযুক্ত রাসেলের বিরুদ্ধে নড়াইল সদর থানায় মাদকের মামলা রয়েছে। প্রধান শিক্ষিকার অভিযোগের সঙ্গে রাসেলের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।