২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


ডিজিটাল হলো ৬ষ্ঠ শ্রেণির পাঠ্যপুস্তক

ডেস্ক রিপোর্টঃঃ ৬ষ্ঠ শ্রেণির ১৬টি পাঠ্যপুস্তক ডিজিটালাইজড করা হয়েছে। ফলে এ বইগুলো এখন থেকে ইন্টারনেট থেকে ডাউনলোড করে পড়া যাবে। পাঠ্যবইয়ে যেসব বিষয় বুঝতে শিক্ষার্থীদের সমস্যা হতো ডিজিটাল বইয়ে ছবি ও ভিডিও দেখে শিক্ষার্থীরা সেগুলো সহজেই বুঝতে পারবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত ‘ডিজিটাল পাঠ্যপুস্তক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে’ প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এসব বিষয় তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, কারিগরি ও মাদরাসা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর মোহাম্মদ পার্কাস।

প্রধান অতিথি শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, আমরা ভবিষ্যত প্রজন্মকে আধুনিক ও বিশ্বমানের করে গড়ে তুলতে চাই। তারা যেন বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশের কল্যাণে কাজ করতে পারে। শিক্ষার্থীদের সহজপাঠের সুযোগ তৈরি করতে পাঠ্যপুস্তক ডিজিটালাইজড করা হয়েছে। বর্তমানে ৬ষ্ঠ শ্রেণির বই ডিজিটাল করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে সকল পাঠ্যপুস্তক ডিজিটাল করা হবে।

তিনি বলেন, শুধু আধুনিক প্রযুক্তি আর মোটা বই তুলে দিলে ভালো মানুষ হবে না, এ জন্য শিক্ষক ও অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। শিক্ষকতা পেশার চাইতে সম্মানজনক আর কোনো পেশা নেই। শিক্ষকরা ব্রত হিসেবে কাজ করছেন। শিক্ষকরাই আমাদের নিয়ামক শক্তি। তাদের প্রচেষ্টায় আমাদের সন্তানরা আধুনিক ও মানসম্মত মানুষ হিসেবে গড়ে উঠবে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, আমরা পর্যায়ক্রমে সকল পাঠ্যপুস্তক ডিজিটাল করার উদ্যোগ নিয়েছি। তার আলোকে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ১৬টি বই ডিজিটাল করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পাঠ্যপুস্তকে কিছু বিষয় পড়তে ও বুঝতে অনেকে কঠিন মনে করে, ডিজিটাল বইয়ে সেসব স্থানে বিভিন্ন ছবি, সমর্থক শব্দ, সাউন্ড ও ভিডিও দেয়া রয়েছে; যা দেখে সহজেই সেসব বিষয় বোঝা যাবে।

এনটিবির চেয়ারম্যান নারায়ন চন্দ্র সাহা বলেন, পাঠ্যপুস্তক ডিজিটাল করাটা কঠিন বিষয়। সকলের প্রচেষ্টা ও জ্ঞান দিয়ে তা করা সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন, ধর্মীয় পাঠ্যপুস্তক ডিজিটালাইজড করাটা কঠিন বিষয়, ধর্মীয় বিষয়ে ছবি ও শব্দ যুক্ত করতে আমাদের অনেক সচেতনতা অবলম্বন করতে হয়েছে। তারপরও যদি কোথাও কোনো ভুল ধরা পরে তবে তা বিবেচনায় নিয়ে সংশোধন করা হবে বলে তিনি জানান।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষার মহাপরিচালক অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমানের সভাপত্বিতে অনুষ্ঠানে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও অধিদফতরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন প্রকল্পের কর্মকর্তা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।