২০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


মাদরাসা শিক্ষকদের সহায়তা চাইলেন বাদশা

ডেস্ক রিপোর্ট» আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাদরাসা শিক্ষকদের সহায়তা চেয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা। সোমবার বিকেলে রাজশাহী দারুস সালাম কামিল মাদরাসায় শিক্ষকদের নিয়ে সভা করেন তিনি।

রাজশাহী দারুস সালাম কামিল মাদরাসার আয়োজনে ওই সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন বাদশা। মাদরাসা শিক্ষার মান উন্নয়ন, অবকাঠামো নির্মাণ ও শিক্ষার পরিবেশ উন্নয়ন শীর্ষক এই সভায় নগরীর আলিয়া নেসাবের সকল স্তরের মাদরাসা শিক্ষক-কর্মচারীরা অংশ নেন।

মহাজোটের প্রার্থী হয়ে নৌকা প্রতীকে আসন্ন এই নির্বাচনে লড়ছেন ফজলে হোসেন বাদশা।

এই আসনে এবার তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু। তাকে হারিয়েই নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে প্রথমবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন বাদশা। এরপর দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

মাদরাসা শিক্ষকদের উদ্দেশে ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, সমাজের মানুষ এখনও রাজনীতিবিদ বা অন্য পেশাজীবী মানুষের চেয়ে শিক্ষকদের কথা বিশ্বাস করেন বেশি।

শিক্ষকরা যার পক্ষে মুখ খুলবেন তার বিজয় অনেকটাই সহজ হবে। তাই শিক্ষকদের কাছে অনুরোধ, কোনো ভয়-ভীতিতে নয়; যিনি যোগ্য, উন্নয়নে ভূমিকা রাখবেন তার পক্ষেই থাকবেন। তাহলে আমাদের রাজশাহী এগিয়ে যাবে।

বাদশা আরও বলেন, আমি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর ২৫৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত উন্নয়ন করেছি। ৭২টির কাজ চলমান। ৫৩০টি মসজিদের উন্নয়ন করেছি। এতো কাজ আমি করতে পারব তা চিন্তাও করতে পারিনি। আগে উন্নয়নের বৈষম্য ছিল, যখন অন্য সরকার ছিল। এখন উন্নয়নে কোনো বৈষম্য নেই। উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতা রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারও রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসাতে হবে। তা না হলে উন্নয়নে ভাটা পড়বে।

তার সরকার সব সময় শিক্ষকদের উন্নয়নে কাজ করেছে উল্লেখ করে বাদশা বলেন, প্রতিটি উপজেলায় একটি করে স্কুল ও কলেজ সরকারি করা হয়েছে। শিক্ষকদের বেতন বাড়ানো হয়েছে। বিভিন্ন ভাতা যোগ হয়েছে। বহু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত হয়েছে।

নির্বাচনের কারণে এই কাজটি আপাতত বন্ধ রয়েছে। নির্বাচনের পর আমরা মাদরাসাসহ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান যেন এমপিওভুক্ত করতে পারি তার জন্য আরেকবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সুযোগ দেবেন।

দারুস সালাম মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ জাকিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন মদীনাতুল উলুম কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মোকাদ্দেসুল ইসলাম ও দারুস সালাম মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি সারওয়ার কামাল।

এতে বক্তব্য দেন বঙ্গবন্ধু কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. কামরুজ্জামান, মসজিদ-ই-নূর দাখিল মাদরাসার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা তৈয়বুর রহমান, শিক্ষক আবদুর রাজ্জাক, সাবেক ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসনাত প্রমুখ। ।