৮ই জুলাই, ২০২০ ইং, ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


শ্রেণিকক্ষে তালা দিলেন বিএম কলেজের শিক্ষার্থীরা

ডেস্ক রিপোর্ট» ফরম পূরণে অতিরিক্ত টাকা আদায়ের প্রতিবাদে বরিশাল বিএম কলেজে মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া বিভিন্ন বিভাগের শ্রেণিকক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেন তারা।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে স্নাতক তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষায় অতিরিক্ত ফি নেয়ার প্রতিবাদে বিএম কলেজের কয়েকশ শিক্ষার্থী মানববন্ধন করেন। এক পর্যায়ে তারা বিক্ষোভ করে কলেজ সংলগ্ন সড়ক কিছুক্ষণের জন্য অবরোধ করেন এবং বিভিন্ন বিভাগের শ্রেণিকক্ষে তালা ঝুলিয়ে দেন।
পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কলেজ কর্তৃপক্ষ আলোচনা করে ফরম পূরণে মোট ফি’র ওপর ৩০০ টাকা আপাতত কম নেয়ার সিদ্ধন্ত নিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের একাধিক পরীক্ষার্থী জানান, তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষায় ফরম পূরণের জন্য জাতীয় বিশ্বেবিদ্যালয়ের নির্ধারিত সেশন চার্জ ১৭০০ টাকা। কিন্তু বিএম কলেজের সবগুলো বিভাগে সেশন চার্জ আদায় করা হচ্ছে ৩৫০০ টাকা। এছাড়া সেমিনার ফিসহ বিভিন্ন চার্জ ধরা হয়েছে ১৯৩৫ টাকা করে। সব মিলিয়ে একজন শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে ৬০০০ টাকায় ফরম ফিলাপ করতে হচ্ছে।

তারা বলেন, তাদের ফরম পূরণ করতে হয়েছে ৬২০০ টাকায়। অনেক বিভাগে এর চেয়েও বেশি নেয়া হচ্ছে।

পরীক্ষার্থীরা জানান, ফরম পূরণের জন্য রূপালী ব্যাংক পরিচালিত শিওর ক্যাশের মাধ্যমে টাকা নেয়া হচ্ছে। সেখানে নির্ধারিত ৩০ টাকা চার্জ ধরা হলেও শিওর ক্যাশ এজেন্টরা সিন্ডিকেট করে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত আদায় করছে।

তবে বিএম কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. শফিকুর রহমান সিকদার জানান, শিক্ষার্থীদের দাবির প্রেক্ষিতে ফরম পূরণে ৩শ’ টাকা কমানো হয়েছে। শিওর ক্যাশে টাকা প্রদানের বিষয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের আপত্তি রয়েছে। এ জন্য শিওর ক্যাশ এজেন্টের নির্ধারিত ফি ৩০ টাকা কলেজ কর্তৃপক্ষ পরিশোধ করবে। ফরম পূরণের জন্য যে ফি আদায় হচ্ছে তা ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ধার্য করা হয়। তিনি দায়িত্ব গ্রহণের পর নতুন করে কোনো ফি ধার্য করেননি।

অধ্যক্ষ আরও জানান, ৩য় বর্ষে প্রায় ৫ হাজার শিক্ষার্থী আছে। তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন বিভাগে সর্বোচ্চ ৫ হাজার টাকা ফরম পূরণ বাবদ নেয়া হচ্ছে। আর মানবিক বিভাগে নেয়া হচ্ছে ৪ হাজার ৫৬৫ টাকা।