২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং, ৬ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ


সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে একই লেসন প্ল্যান বা পাঠ পরিকল্পনা চালু হচ্ছে

ডেস্ক রিপোর্ট» সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে একই লেসন প্ল্যান বা পাঠ পরিকল্পনা চালু করতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার, যার মাধ্যমে একই সময়ে সব স্কুলে একই পাঠদান হবে।

এছাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষকদের সন্তানদের কিন্ডার গার্টেন বা এ জাতীয় প্রতিষ্ঠানে পড়া বন্ধ করতে পূর্বের একটি নির্দেশনা আবারও চালু করতে যাচ্ছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত এবং দুর্নীতি রোধে এসব উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন এবং সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন।

মঙ্গলবার (১৫ জানুয়ারি) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ঢাকা জেলার সাভার, ধামরাই, দোহার ও নবাবগঞ্জ উপজেলার শিক্ষা কর্মকর্তা এবং শিক্ষকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী ও সচিব।

সচিব বলেন, সারাদেশে একই লেসন প্ল্যানে পড়ানো হবে। নেপকে (জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি) দিয়ে লেসন প্ল্যান তৈরি করিয়েছি। এটা চূড়ান্ত করার পরে প্রত্যেক স্কুলে পাঠিয়ে দেবো। বাংলাদেশের প্রত্যেক স্কুলের লেসন প্ল্যান হবে এক রকম।

‘অর্থাৎ ঢাকার নীলক্ষেত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের যে পাঠদান হবে পঞ্চগড়ের একটা প্রত্যন্ত স্কুলের বাংলায় সেই একই পাঠ হবে।’

এতে মনিটরিং সহজ হবে জানিয়ে সচিব বলেন, স্কুলে গিয়ে কর্মকর্তারা মনিটরিং করবেন যে টিচারের কোনটি পড়ানোর কথা ছিল, তিনি কোথায় পড়াচ্ছেন। মনিটরিংয়ের মাধ্যমে করাপশনকে জিরো করার জন্য এ পদ্ধতি অবলম্বন করেছি। রমজান মাসে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের নিয়মানুযায়ী সারাদেশে একই নিয়মে যেমন তারাবির নামাজ হয়, সে রকম।

মনিটরিং সুবিধার জন্য এমনটি করা হবে জানিয়ে সচিব বলেন, মনিটরিং কার্যক্রমটা জোরদার করতে হবে। উপজেলায় যেসব কর্মকর্তা আছেন, তাদের একেকটা স্কুলের মেনটর নিয়োগ করতে পারি। এই দায়িত্ব অর্পণ করা হলো।

তিনি বলেন, মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিত করতে আমরা প্রত্যেক জেলায় একজন করে মেন্টর নিয়োগ করেছি। নিজের জেলা মাগুরা ও পাশের জেলা যশোরের দায়িত্বে সচিব। প্রত্যেক কর্মকর্তাকে নিজ জেলা অথবা তার পাশের জেলার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পাবনা জেলায় মহাপরিচালককে দায়িত্ব দিয়েছি।

সচিব বলেন, জিরো টলারেন্স অ্যাগেইনস্ট করাপশন- এটা মন্ত্রণালয় থেকে প্রাথমিক স্তর পর্যন্ত নিশ্চিত করা হবে।

বখাটেকে ধরে বিচারকের কাছে নিল কলেজছাত্রী